Advertisement

এক ঝাঁক শিল্পীর ছবিতে বঙ্গবন্ধু ছবি মেলা

নিজস্ব প্রতিবেদক

নিউজরাজশাহী.কম

প্রকাশিত : ০২:৪৫ এএম, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ রবিবার

শীতের সকালের হালকা রোদ প্রখর হতে শুরু করেছে। সূর্যের আলোতে ঝিলিক দিয়ে উঠছে নানান রঙ ও রঙমাখা তুলি। এর মাঝেও রোদের তাপ গায়ে নিয়ে একদল শিল্পী রঙতুলি মাখিয়ে রাঙিয়ে তুলছে ক্যানভাস। আলতো করে রঙ মাখিয়ে দিচ্ছেন সামনে থাকা কাগজের উপর। আর কাগজে ফুটে ওঠছে শিল্পীর অনুভূতি। এ দৃশ্য বঙ্গবন্ধু ছবিমেলা আর্ট ক্যাম্পের।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ‘মুজিববর্ষ’ উদযাপনের লক্ষ্যে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ প্রাঙ্গনে এ আর্টক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়। গত শুক্রবার ‘পিতার ভাবনার সোনার বাংলা’ শীর্ষক দুই দিনব্যাপী এ আয়োজন করে হাসুমণি’র পাঠশালা।

অনুষদ প্রাঙ্গন ঘুরে দেখা যায়, শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি অংশ নিয়েছে নগরী থেকে আসা স্থানীয় শিল্পীরাও। তাদের আকাঁ ছবি দেখতে ভীড় জমিয়েছে অন্যান্য বিভাগের শিক্ষক শিক্ষার্থীসহ ক্যাম্পাসের বাইরে থেকে আসা দর্শনার্থীরা।

এমন আয়োজনে মুগ্ধ হয়েছেন সবাই। এর আগে, শুক্রবার সকালে রাবি উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান ছবিমেলার উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘ছবি কথা বলে। যা অস্ত্র, ভাষা দিয়ে পারা যায় না, তা ছবি পারে। বঙ্গবন্ধু সারাজীবন যে পরিশ্রম করেছেন, দেশ ও মানুষের জন্য জীবনের অধিকাংশ জেলে অতিবাহিত করেছেন সেজন্য তিনি যুগ যুগ ধরে বেঁচে আছেন। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার ধারাবাহিকতা যেন আমরা অনুসরণ করি। শিল্প মানুষের মনকে প্রতিহিংসা, বিদ্বেষ থেকে বাঁচিয়ে রাখে। আপনারা আপনাদের শিল্পের মাধ্যমে মানুষের মনকে জাগিয়ে তুলবেন।’

হাসুমণি’র পাঠশালার সভাপতি ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্য মারুফা আক্তার পপি বলেন, ‘মুজিববর্ষ’ উদযাপনের অংশ হিসেবে দেশব্যাপী আটটি বিভাগে ছবিমেলা উদযাপনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে দুইটি বিভাগে এ মেলা উদযাপন করা হয়েছে। এবার রাজশাহীর বিভাগীয় কমিটি ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগিতায় এ আয়োজন করেছি।

এ বিষয়ে রাবির চিত্রকলা প্রাচ্যকলা ও ছাপচিত্র বিভাগের শিক্ষার্থী শরিফুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে পিতার ভাবনার সোনার বাংলা শীর্ষক বঙ্গবন্ধু ছবি মেলা রাজশাহী বিভাগীয় আর্ট ক্যাম্পে অংশ গ্রহন করতে পেরে খুবই আনন্দিত। এটি চারুকলা অনুষদের আমার দেখা সব থেকে বড় আর্ট ক্যাম্প, যেখানে ছাত্র শিক্ষক সহ ঢাকার সুনামধন্য অনেক শিল্পীদের সাথে একত্রে কাজ করার নতুন অভিজ্ঞতা অর্জিত হয়েছে। এই আর্ট ক্যাম্প থেকে তরুন প্রজন্ম বঙ্গবন্ধুর চেতনায় উজ্জীবিত হবে এই আশা ব্যক্ত করছি। ধন্যবাদ জানায় আয়োজক সহ সংশ্লিষ্ট সকল কে এ ধরনের প্রোগ্রাম ভবিষ্যতে আরও আয়োজন করা হোক এই আশাবাদ ব্যক্ত করছি।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য এনামুল হক, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা ও অধ্যাপক চৌধুরী মো. জাকারিয়া, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিল্ম এন্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক জুনায়েদ হালিম, বিটিভির শিল্প বিভাগের পরিচালাক জাহিদ মোস্তফা, শিল্পী তরুণ ঘোষ, চারুকলা অনুষদের অধিকর্তা অধ্যাপক সিদ্ধান্ত শংকর তালুকদার, শিক্ষক-শিক্ষঅর্থী ও দর্শনার্থীরা। এসময় অতিথিগণ শিল্পীদের হাতে রঙতুলি ও ক্যানভাস তুলে দেন।