তানোরে গমের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা

নিজস্ব প্রতিবেদক

নিউজরাজশাহী.কম

প্রকাশিত : ০৭:২১ পিএম, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ মঙ্গলবার

রাজশাহীর তানোরে চলতি মৌসুমে গমের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে। উপজেলার গম চাষিরা লাভের আশায় দিন গুণছেন। সবুজ গম গাছে শোভা পাচ্ছে।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, চলতি মৌসুমে উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন ও দুটি পৌর এলাকায় ১ হাজার ২শ হেক্টর জমিতে গম চাষ আবাদ করা হয়েছে। এবার এএলাকায় উচ্চ ফলনশীল বারী গম ২৩, ২৪, ২৫, ২৬ ও ২৭ এর চাষ করা হয়েছে। কৃষি অফিস এখন পর্যন্ত লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ না করলেও যে হারে গম দেখা যাচ্ছে আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে গত বারের চেয়ে দিগুণ গম উৎপাদন হবে বলে ধারণা করছে কৃষি অফিস।

সরেজমিনে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে গম চাষিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গম চাষে অন্য আবাদের চেয়ে কম খরচ হয়। তাই কৃষকরা এবার কম খরচে বেশি লাভের আশায় গমের চাষ করেছেন।

উপজেলার চিমনা গ্রামের কৃষক হযরত আলী জানান, গত বছর নায্যমূল্য পাওয়ায় এবার ২ বিঘা জমিতে গম আবাদ করেছি। কৃষি অফিসের নির্দেশনা অনুযায়ী পরিচর্যা করছি। আশা করছি বিঘাপ্রতি ১৪ মণ ফলন হবে।

একই গ্রামের কৃষক হারুন রশীদ জানান, প্রতি বছরের মত এবারো ৩ বিঘা জমিতে গম চাষ করেছি। এ পরিমাণ জমি থেকে গত বছরের মতো এবারো ৪২ মণ গম পাওয়ার আশা করছি। গত বছর গমের দাম মণপ্রতি পেয়েছি ৮০০ টাকা। যার বাজার মূল্য ছিল ৩৩ হাজার ৬০০ টাকা। এবারো সমপরিমাণ টাকা পাওয়ার আশা করছি

উপজেলার কচুয়া গ্রামের গম চাষি সাহিন হোসেন জানান, প্রতি বছরের চেয়ে এবার আমার গমের ভালো হবে। আশা করছি বাম্পার ফলন পাবো। আর কম খরচে বেশি লাভজনক তাই দীর্ঘ ১০ বছর ধরে এ গম চাষাবাদ করছি বলে জানান তিনি।

এ বিষয়ে উপজেলার কৃষি অফিসার শামিমুল ইসলাম জানান, চলতি মৌসুমে আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় গমের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে। গম চাষে অন্য আবাদের চেয়ে কম খরচ হয়। তাই চাষিরা এবার বেশি বেশি গম চাষ করেছেন।

তিনি আরো বলেন, তাছাড়া সরকারিভাবে কৃষককে কৃষি প্রনোদণা হিসেবে বিনামূল্যে উচ্চ ফলনশীল বীজ ও সার বিতরণ করা হয়েছে। এতে করে কৃষকদের গম চাষে আগ্রহ বাড়ছে।