তিন মাস ধরে তালাবদ্ধ চারঘাটের অনুপমপুর কমিউনিটি ক্লিনিক

আবুল কালাম আজাদ সনি, চারঘাট

নিউজরাজশাহী.কম

প্রকাশিত : ০৬:৪৪ পিএম, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ মঙ্গলবার | আপডেট: ০৬:৪৪ পিএম, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ মঙ্গলবার

প্রায় তিন মাস ধরে তালাবদ্ধ রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার অনুপামপুর কমিউনিটি ক্লিনিক। সরকারি চিকিৎসা না পেয়ে প্রতিদিনই ফিরে যেতে হচ্ছে রোগীদের। অনুপামপুর কমিউনিটি ক্লিনিকের চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ এলাকাবাসীর।

মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে অনুপামপুর কমিউনিটি ক্লিনিকে গিয়ে দেখা গেছে, বেশ কয়েকজন রোগী ওই ক্লিনিকের সামনে ঘোরাঘুরি করছেন। ক্লিনিকের জানালাগুলো খোলা তবে দরজা তালা বদ্ধ। কয়েকজন রোগী এসে ক্লিনিক বন্ধ দেখে ফিরে গেছেন। ক্লিনিকের সামনের জায়গা আবর্জনায় পরিপূর্ণ। বাহির থেকে চাকচিক্য মনে হলেও জানালা দিয়ে তাকালে তেমনটা মনে হচ্ছে না।

এলাকাবাসী ও রোগীরা জানায়, চারঘাট ইউনিয়নের অনুপামপুর কমিউনিটি ক্লিনিকে নিয়মিত চিকিৎসা সেবা পাওয়া যায় না। চিকিৎসকের জন্য অপেক্ষা করতে হয়। ক্লিনিকের বারান্দায় টানানো আছে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত চিকিৎসক বসেন। কিন্তু গত তিন মাস ধরে ক্লিনিক বন্ধ রয়েছে। মাঝে মধ্যে দশ বিশ মিনিটের জন্য খোলা হলেও রোগীদের কাউকে ওষুধ সরবারহ করা হয় না। সপ্তাহে কোন দিন একটু সময়ের জন্য খোলা থাকবে এ কমিউনিটি ক্লিনিক সেটাও নির্দিষ্ট করে কেউই বলতে পারে না। প্রতিদিন ওই ক্লিনিকে চিকিৎসা সেবা না পেয়ে ফিরে যেতে হয় রোগীদের। নারী রোগীরা অনেক সময় ক্লিনিক বন্ধ দেখে পাশের বাড়িতে চিকিৎসকের জন্য অপেক্ষা করে পরে চলে যান। চিকিৎসকরা তাদের দায়িত্ব বাদ দিয়ে ব্যস্ত থাকেন ব্যক্তিগত কাজে।

স্থানীয় বাসিন্দা রমেলা বেগম জানান, এখানে নিয়মিত রোগীরা স্থাস্থ্য সেবা পান না। অনিয়মিত ভাবে চলে কমিউনিটি ক্লিনিক। প্রায়ই বন্ধ থাকে ক্লিনিকটি। সপ্তাহে দুই তিন দিন খোলা থাকে তাও আবার দশ বিশ মিনিটের জন্য। তিন মাস ধরে কোনো রোগীকে ওষুধ দেওয়া হয়না। কোন দিন চিকিৎসক আসবে তা বলা মুশকিল।

ক্লিনিকের কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোপাইডার (সি এইচ সি পি) শ্যামলী খাতুন জানান, তিনি ছয় মাসের মাতৃত্বকালীন ছুটিতে আছেন, সেজন্য প্রায় তিন মাস ধরে ক্লিনিকে আসেন না। রোগীরা চিকিৎসা না পেয়ে ঘুরে যাচ্ছেন এমনটা তিনি জানেন না। এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার সাথে কথা বলার পরামর্শ দেন তিনি।

ঐ ক্লিনিকের স্বাস্থ্য সহকারী এনায়েত হোসেন জানান, তিনি হাম টিকার জরিপ করার কারনে নিয়মিত ক্লিনিকে আসতে পারেন না। তাবে এখন জরিপ শেষ, আগামী নিয়মিত ক্লিনিক খোলা থাকবে বলে জানান তিনি।

এ ব্যাপারে রাজশাহী সিভিল সার্জন ডাঃ এনামুল হক বলেন, কমিউনিটি ক্লিনিক শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটি। শনিবার থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত খোলা থাকে নিয়মিত। ঐ ক্লিনিকের বিষয়টা তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

স/এমএমআই