নীলফামারীতে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন লঙ্ঘনের দায়ে ৩হাজার টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক

নিউজরাজশাহী.কম

প্রকাশিত : ০৮:৪৮ পিএম, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ মঙ্গলবার

নীলফামারী সদরে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন লঙ্ঘন করে তামাকের অবৈধ বিজ্ঞাপন প্রদর্শণের দায়ে দুই তামাক বিক্রেতাকে ১ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এছাড়া বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের আদেশ অমান্য করে হাকিরপুরী জর্দ্দা দোকানে সংরক্ষণ ও বিক্রয়ের দায়ে এক মুদির দোকানীকে ২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) বিকালে পৌর এলাকার দারোয়ানী টেক্সটাইল এলাকায় পৃথক ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে এসব জরিমানা করা হয়। 

এসব ভ্রাম্যমাণ আদালতের একটিতে নেতৃত্ব দেন- নীলফামারী জেলা প্রশাসনের সহকারি কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদুর রহমান, জায়িদ ইমরুল মোজাক্কিন ও রোখসানা পারভিন।

এসময় সদর উপজেলা স্যানেটারী ইন্সপেক্টর আল-আমিন হোসেন, ‘এ্যাসোসিয়েশন ফর কম্যুনিটি ডেভেলপমেন্ট-এসিডি’র তামাক নিয়ন্ত্রণ প্রকল্পের পার্টনার এনজিও ‘ডেভেলপমেন্ট কাউন্সিল-ডিসি’র এর প্রোগ্রাম অফিসার মোহায়মিনুল ইসলামসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। 

উপজেলা স্যানেটারী ইন্সপেক্টর আল-আমিন হোসেন বলেন, ‘ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার (নিয়ন্ত্রণ) আইন-২০০৫ (সংশোধিত আইন-২০১৩) এর ধারা-৫ (ছ) অনুযায়ী- বিক্রয়স্থলে বা অন্য কোনো স্থানে তামাকজাত দ্রব্যের সকল ধরনের বিজ্ঞাপন প্রচার কিংবা প্রদর্শণ নিষিদ্ধ। তাই তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন বাস্তবায়নে পৌর শহরের বিভিন্ন এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়েছে। তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন লঙ্ঘনের দায়ে এসময় মাসুদ পান স্টোর নামে এক তামাক বিক্রোর মালিক মাসুদ রানাকে ৫০০ টাকা, বেলাল পান স্টোরের মালিক মো. বেলাল হোসেনকে ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।’ 

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের পরিচালক (এনফোর্সমেন্ট) গত ৫ জানুয়ারি ২০২০ একটি চিঠি ইস্যু করেন। যেখানে উল্লেখ আছে হাকীমপুরী জর্দ্দাসহ কিছু জর্দ্দা, খয়ের ও গুলে ল্যাব টেস্টে ক্যাডমিয়াম ও ক্রোমিয়ামের  অস্তিস্ত খুঁজে পাওয়া গেছে। যা শরীরের জন্য খুবই ক্ষতিকর। এজন্য চিঠিতে এসব জর্দ্দা, গুল কিংবা খয়ের বাজারে বিক্রি, সংরক্ষণ কিংবা বিপণন সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করার পাশাপাশি আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করার নিদের্শনা দেয়া হয়েছে। তারপরও শহরের টেক্সটাইল বাজারে রাব্বি স্টোর নামে একটি মুদির দোকানে  হাকিমপুরী জর্দ্দা সংরক্ষণ ও বিক্রয়ের অপরাধে ভোক্তা অধিকার আইনের ৫২ ধারা মোতাবেক দোকানের মালিক আনিছুর শেখকে ২০০০ টাকা জরিমারা করা হয়েছে। 

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদুর রহমান বলেন, ‘তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে এই ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়েছে। জনস্বার্থে এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।’