পুঠিয়া অ্যাম্বুলেন্স দুর্ঘটনা: মারা গেলেন সিএনজি চালক কুদ্দুস

নিজস্ব প্রতিবেদক

নিউজরাজশাহী.কম

প্রকাশিত : ১২:৪৯ পিএম, ১৬ নভেম্বর ২০১৯ শনিবার

রাজশাহীর পুঠিয়ায় এম্বুলেন্সের ধাক্কায় কুদ্দুস আলী (৪৫) নামের এক সিএনজি যাত্রী নিহত হয়েছে। নিহত কুদ্দুস আলী পুঠিয়ার দৈপাড়া গ্রামের মৃত সেকেন্দার আলীর ছেলে। রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

জানা যায়, শুক্রবার দুপুর ১২ টার সময় উপজেলার ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কের তারাপুর নামক স্থানে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে। সে সময় এম্বুলেন্সের ধাক্কায় সিএনজির পাঁচ যাত্রী আহত হয়।

আহতরা হলো, উপজেলার বেলপুকুর ইউনিয়নের ভাংড়া গ্রামের ফজলুল হক (৭৫), বাঘা উপজেলার আড়ানী এলাকার মিনা বেগম (৪৫), বেলপুকুর ইউনিয়নের দোমাদী গ্রামের ফারুক (২৪) ও পুঠিয়া রামজীবনপুর গ্রামের রবিউল ইসলাম (৬০)। গুরুত্বর আহত ফজলুল হককে রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

প্রত্যেক্ষর্দী সূত্রে জানা গেছে, নাটোর থেকে রাজশাহীগামী বেসরকারী নয়ন এম্বুলেন্স দ্রুতগতিতে যাওয়ার সময় উপজেলার ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কের তারাপুর কালুশার পুকুর নামক স্থানে পৌঁছালে সামনের একটি মোটরসাইকেলকে পাসকাটিয়ে যাওয়ার সময় সামনের একটি যাত্রীবাহী সিএনজির পিছনে ধাক্কা দেয়। এতে সিএনজি যাত্রীরা ছিটকে মহাসড়কে পড়ে কুদ্দুস আলী ও ফজলুল হক গুরুত্বর আহত হয়। সে সময় ফায়ার সার্ভিসের কর্মিরা তাদেরকে উদ্ধার করে পুঠিয়া উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। গুরুতর আহত কুদ্দুস আলীকে রামেক হাসপাতালে নেওয়ার সময় মারা যায়।