Advertisement

বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলের জনপ্রিয় খাবার

ডেস্ক রিপোর্ট

নিউজরাজশাহী.কম

প্রকাশিত : ১০:৪০ এএম, ২ মে ২০১৯ বৃহস্পতিবার

 

রন্ধনশৈলী বাঙালি দের খাবারের তালিকায় সবথেকে এগিয়ে ভাত, মাছ, মাংস, ডাল, ডিম, দুধ, এবং সবজি। এর মধ্যে ভাত ও মাছ সবথেকে প্রিয়, বাঙালি প্রতিটা পরিবারের সাথে মিশে আছে ভাত ও মাছের গল্প। মাছভাত ছাড়া বাঙালির খাবার যেন অসুম্পূর্ণই থেকে যায়, আর এই জন্যই মাছে ভাতে বাঙালি বলা হয়ে থাকে।

বাঙালি যেমন খেতে ভালোবাসে তেমনি খাওয়াতেও ভালোবাসে, অতিথি পরায়ণে বাঙালি অন্যতম। বিভিন্ন সুস্বাদু খাবার পরিবেশনের মাধ্যমে বাঙালি অতিথি আপ্যায়ণ করে থাকেন। বৈচিত্রময় বাঙালির অঞ্চলভেদে বিভিন্ন খাবারের জনপ্রিয়তাও আছে অনেক।

উত্তর অঞ্চল এর জনপ্রিয় খাবার:

বাংলাদেশের উত্তর অঞ্চলের আলাদা স্থানে বিভিন্ন রকমের খাবারের সুখ্যাতি আছে, যেমন সিরাজগঞ্জ অঞ্চলের মানুষের মধ্যে "ঘাঁটি" নামক এক প্রকার খাবারে ব্যাপক প্রচলন আছে। "ঘাঁটি" মূলত বড় কোন মাছের মাথা দিয়ে লাউ/আলু/মুগ ডালের ঘণ্ট সবজি। যা ভাতের সাথে খাওয়া হয়ে থাকে। "ঘাঁটি" খাবারটি ভীষণ সুস্বাদু ও জনপ্রিয়। সিরাজগঞ্জ সহ পাবনা ও নাটোর অঞ্চলের আরো একটা জনপ্রিয় খাবার হলো "মাছের ঝোল", ছোট বড় যেকোনো রকম মাছের সাথে বিভিন্ন প্রকার সবজি দিয়ে তৈরী করাহয় "মাছের ঝোল", সুস্বাদু বিশেষ এই খাবারটি এই অঞ্চলে অনেক জনপ্রিয়। এছাড়াও কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, রংপুর, গাইবান্ধা, পঞ্চগড়, এই অঞ্চলের লোকেদের মধ্যে বিভিন্ন রকমের ভর্তার এবং রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ এর "কোলাই রুটি" এর অনেক জনপ্রিয়তা আছে।

সিলেট অঞ্চলের জনপ্রিয় খাবার:

সিলেট যেমন প্রাকৃতিক সৌন্দর্যময় অঞ্চল, তেমনি এই অঞ্চলের খাবার দাবারেও আছে নানা বৈচিত্র। "আখনী পোলাও" সিলেট অঞ্চলের একটি জনপ্রিয় খাবার। চাল, ঘি, গরম মশলা, সবজি এবং মাংস মিশিয়ে রান্না করা এই খাবারটি সিলেটের একটি নিজেস্ব এবং ঐতিহ্যবাহী খাবার হিসাবে সুপরিচিত। এছাড়াও সিলেটের আরো কিছু জনপ্রিয় খাবারের মধ্যে "হাঁস-বাশ" ও "হিদল শুঁটকি" উন্নতম। কচিবাসের কুচি ও হাঁসের মাংস দিয়ে তৈরী করা হয় "হাঁস-বাশ" খাবার। আর হিদল বা চ্যাপা শুঁটকি, পাঁচফোড়ন ও মশলা দিয়ে তৈরী করা হয় এই "হিদল শুঁটকি" খাবার।

চট্টগ্রাম অঞ্চলের জনপ্রিয় খাবার:

চট্টগ্রামের খাবারের কথা ভাবলেই সবার প্রথমে শুঁটকির কোথায় মাথায় আসে, তাই খুব স্বাভাবিক ভাবেই এ অঞ্চলের শুঁটকি সবথেকে জনপ্রিয় খাবার। চট্টগ্রাম অঞ্চলের মানুষেরা শুধু মাত্র শুঁটকি ব্যবহার করে বিভিন্ন সুস্বাদু খাবার তৈরী করে থাকে। এছাড়াও চট্টগ্রামের আরো একটি জনপ্রিয় খাবার হলো "মেজবানি মাংস", মরিচ ও মসলা সহযোগে রান্না করা ঝাল গোশত। স্বাদের ভিন্নতার জন্য ব্যবহার করা হয় টক দই, নারিকেল বাটা, চিনাবাদাম বাটা।

দক্ষিণ অঞ্চলের জনপ্রিয় খাবার:

বাংলাদেশের দক্ষিণ অঞ্চলের বেশিরভাগ জেলার মানুষের খাদ্যভ্যাস কিছুটা একই রকম হলেও এখানেও রয়েছে বিভিন্ন স্থানের জনপ্রিয় খাবার। যেমন সবার প্রথমেই বলতে হয় সাতক্ষীরার "চুই ঝাল" এর কথা, এটি সাতক্ষীরার ও খুলনা সহ সমস্ত দক্ষিণ অঞ্চলের সবথেকে জনপ্রিয় খাবার। চুইঝাল মূলত প্রচলিত মসলা জাতীয় অর্থকরী ফসল, যার বেবহার করে মাংস রান্না করা হয়ে থাকে। "চুই ঝাল" খেতে ভীষণই সুস্বাদু! বরিশালে "মলিদা" নামক খাবারের বেশ জনপ্রিয়তা আছে, এই অঞ্চলে মলিদা ব্যতীত ঈদ বা অন্য যেকোনো উৎসবে বরিশালের মানুষদের কাছে যেন ঠিকমতো জমেই ওঠে না। মলিদা মূলত চিড়া অথবা মুড়ি, কোড়ানো নারিকেল, দুধ, পোলায়ের চাল ও আদা দিয়ে তৈরী করা হয়ে থাকে। এছাড়াও আরো কিছু জনপ্রিয় খাবার আছে এই অঞ্চলে, যেমন: যশোরের ঘাটকোল, ছাক্কা, ছিটে রুটি ইত্যাদি এই অঞ্চলের অন্যতম খাবার।

ঢাকার জনপ্রিয় খাবার:

ঢাকায় সারা দেশের সব জনপ্রিয় খাবারের মিলন মেলায় পরিণত হয়েছে। কিন্ত রসনার কথা বলতে গেলে এক্ষেত্রে একমাত্র উল্লেখ্য খাবার পুরান-ঢাকার বিরিয়ানি যা ঢাকাই লোকদের কাছে অধিক জনপ্রিয়। তবে এটা ঠিক যে দেশীয় রান্নার চাইতে ঢাকাই খাবারে মোঘল ও পদের আধিক্যই বেশি। তবুও যুগ যুগ ধরে প্রচলিত এসব খাবার এখন আমাদের দেশীয় সংস্কৃতির অংশ হয়ে গেছে। অপূর্ব এসব খাবারের মাঝে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের কাবাব, কোফতা, কালিয়া, রোস্ট, পোলাও, বিরিয়ানি সহ বিভিন্ন রকম রুটি ইত্যাদি।