শিবগঞ্জে নৌকা বাইচ ও সাঁতার প্রতিযোগিতার ফাইনাল অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক

নিউজরাজশাহী.কম

প্রকাশিত : ০৭:২৫ পিএম, ১৮ অক্টোবর ২০১৯ শুক্রবার

চাঁপাইনবাবগঞ্জের পাগলা নদীতে শ্যামপুর উমরপুর ঘাট এলাকায় ২ দিনের নৌকা বাইচ ও সাঁতার প্রতিযোগিতা খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। কয়লার দিয়াড় চমৎকার বাজার ঘাট উন্নয়ন সমিতির আয়োজনে ২দিনের এ নৌকা বাইচ ও সাঁতার প্রতিযোগীতা শেষে বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) রাতে বিজয়ীদের মাঝে গরু-ছাগলসহ ব্যতিক্রমী পুরষ্কার দেয়া হয়।

ব্যতিক্রমী এ আয়োজনের সমাপনী দিনে নদীতীরের ২ ধারে নারী পুরুষের ব্যপক সমাগম ঘটে।

১১ মাঝির দল ও ৮ মাঝির দল এ  দুই ক্যাটাগরিতে ৬ টি দলের প্রতিযোগিতা শেষে বৃহষ্পতিবার বিকেলে অনুষ্ঠিত ফাইনাল খেলায় ১১ মাঝির নৌকার মুজিবুর মাঝির দল এবং ৮ মাঝির নৌকার হারুন মাঝির দল বিজয়ী হয়। শেষে প্রথমবার অনুষ্ঠিত সাঁতার প্রতিযোগিতায় ১৪ জন অংশ গ্রহন করে এবং রাজিব হোসেন বিজয়ী হন।

প্রতিযোগিতা শেষে রাতে এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক পুরষ্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে কয়লার দিয়াড় চমৎকার বাজার ঘাট উন্নয়ন সমিতির সভাপতি শফিকুল ইসালাম (ডাকু)’র সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লার পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম (পিপিএম,বিপিএমবার)।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে নদীমাতৃক বাংলাদেশে এখনও ২ শতাধিক নদী রয়েছে। যেগুলোতে নিয়মিত নৌকা বাইচ খেলা অনুষ্ঠিত হলে যুব সমাজ এ ধরনের খেলায় উজ্জীবিত হবে এবং মাদক ও সন্ত্রাস তারা পরিহার করতে পারবে। তিনি আগামীতে এ ধরনের আয়োজন আরও বড় পরিসরে করার জন্য সহায়তার আশ্বাস দেন। 

এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, শিবগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, শ্যামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আসাদুজ্জামান (ভোদন), সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খাইরুল ইসলাম, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রিজভী আলম রানা, পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আলিরাজসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ,যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ।

আলোচনা সভা শেষে বিজয়ীদের হাতে প্রথম পুরষ্কার হিসেবে ব্যাতিক্রমধমী পুরুষ্কার হিসেবে একটি বিশাল গরু তুলে দেন কুমিল্লার পুুলিশ সুপার সৈয়দ নূরুল ইসলাম, বিপিএম, পিপিএম। এছাড়াও অন্যান্য প্রতিযোগীতায় ২টি ছাগল, ৩২ ও ২৪ ইঞ্চি এলইডি টেলিভিশন এবং প্রত্যেক প্রতিযোগীদের নগদ টাকা দেয়া হয়।

এ দিকে প্রথমবারের মত সাঁতার প্রতিযোগিতা ও প্রতিবছরের মত নৌকাবাইচ খেলা দেখতে নদীতীরে উপচে পড়া ভীড় লক্ষা করা গেছে। নারী-পুরুষ,বৃদ্ধ-শিশুরাও নৌকা বাইচ ও প্রথমবার অনুষ্ঠিত সাঁতার প্রতিযোগীতায় এসে আনন্দ উপভোগ করেছে। ব্যতিক্রমী পুরস্কার গরু ও খাসি হওয়ায় দর্শকদের আগ্রহ ছিল অনুষ্ঠানের শেষ পর্যন্ত।