সাংবাদিক বহিষ্কারে জড়িতদের শাস্তি চায় রাবির সাংবাদিকেরা

নিজস্ব প্রতিবেদক

নিউজরাজশাহী.কম

প্রকাশিত : ০৬:৩৬ পিএম, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ বৃহস্পতিবার

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ‘দ্যা ডেইলি সানের’ সাংবাদিক  ফাতেমা তুজ জিনিয়াকে সাময়িক বহিষ্কার ও হয়রানি ঘটনায় জড়িতদের শাস্তি দাবি জানিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দ। বৃহস্পতিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে এসব দাবি জানান সাংবাদিকরা।

রিপোটার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক আহম্মেদ ফরিদের সঞ্চালনায় সাংবাদিকরা বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় হল হলো মুক্ত চর্চার কেন্দ্র। ক্যাম্পাসে কর্মরত সাংবাদিকরা মুক্তভাবে লেখালেখি করবে কিন্তু সেখানে ফেসবুকে “বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ কি?” স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিককে জিনিয়াকে বহিস্কার করা হয়। এ ঘটনায় জিনিয়াকে ফোনে হুমকি এবং গালিগালাজ করে। পরবর্তীতে সাংবাদিক শামস জেবিনের ওপর অতর্কিত হামলা করা হয়েছে। প্রত্যেকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্যাম্পাস সাংবাদিকদের ওপর হামলা এবং স্বাধীন সাংবাদিকতার উপর প্রভাব ফেলছে ।

সাংবাদিকরা আরো বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় স্বাধীন সাংবাদিকতার পরিবেশ নিশ্চিত এবং  সাংবাদিকদের ওপর যাতে আর কোন ধরনের হামলা কিংবা এধরনের ঘটনা না ঘটে সেজন্য দেশের ক্যাম্পাস গুলো সকল সাংবাদিকদের এক হয়ে কাজ করতে হবে। এ ঘটনায় যারা জড়িত তাদের অনতিবিলম্বে বিচারের আওতায় আনতে হবে।

গত মঙ্গলবার জিনিয়াকে বহিস্কারের ঘটনায় ‘বাংলাদেশ ক্যাম্পাস জার্নালিস্ট ফেডারেশন’ বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে ৪৮ ঘন্টা আল্টিমেটাম দেয় যার প্রেক্ষিতে ও চাপের মুখে প্রশাসন জিনিয়াকে সাময়িক বহিষ্কারাদেশ তুলে নিয়েছে। কিন্তু নিজেদের দায় স্বীকার করে নি।

প্রসঙ্গত, গত ১১ সেপ্টেম্বর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ কি এ ধরনের স্ট্যাটাসকে বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য হৃমকি সরূপ কারণ দেখিয়ে সাময়িক বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

মানবন্ধন কর্মসূচীতে প্রেসক্লাবের সভাপতি মানিক রাইহান বাপ্পী, সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম জয়, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাশেদ রাজন, কোষাধ্যক্ষ সালমান শাকিল, সাংবাদিক সমিতির সভাপতি সুজন আলী, সহ-সভাপতি মঈন উদ্দিন, কোষাধ্যক্ষ শাহিন আলম, রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি মর্তুজা নূর, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলী ইউনূস হৃদয়, সহ-সভাপতি ইয়াজিম পলাশ, কোষাধ্যক্ষ আরাফাত রহমান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। এসময় কর্মরত তিন সংগঠনের অর্ধশতাধিক সাংবাদিক উপস্থিত ছিলেন।