সাংসদ ফারুকের হটলাইনে মিলছে খাদ্যসামগ্রী

মিজানুর রহমান, তানোর

নিউজরাজশাহী.কম

প্রকাশিত : ১১:০২ পিএম, ৯ এপ্রিল ২০২০ বৃহস্পতিবার | আপডেট: ১১:০২ পিএম, ৯ এপ্রিল ২০২০ বৃহস্পতিবার

করোনা সংকটে কর্মহীন মানুষের জন্য দিনরাত ছুটে চলেছেন রাজশাহী-১ আসনের সাংসদ ওমর ফারুক চৌধুরী। ইতিমধ্যে কর্মহীন হয়ে পড়া তানোর ও গোদাগাড়ী উপজেলার মানুষের জন্য হটলাইনও চালু করেছেন তিনি। হটলাইনে কেউ ফোন বা এসএমএস করলেই রাতের আধারে সেচ্ছাসেবীর মাধ্যমে ঘরে ঘরে পৌছে দিচ্ছেন খাদ্যসামগ্রী।

সরকারি ত্রানের পাশাপাশি নিজের অর্থ দিয়েও কর্মহীন মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছেন তিনি। নিয়মিত খোঁজ খবর নিচ্ছেন নিজের নির্বাচনী এলাকা তানোর-গোদাগাড়ী উপজেলায় কর্মহীন মানুষের। সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে তিনি অতিদরিদ্র মানুষকে খাদ্য সহায়তা দিয়ে চলেছেন।

সকালে তানোরে তো বিকেলে ছুটছেন গোদাগাড়ীতে। স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মাধ্যমে খোঁজ নিয়ে কর্মহীনদের ঘরে ঘরে পৌছে দিচ্ছেন খাদ্য সহায়তা। এতে দুই উপজেলার মানুষ অনেক খুশি।

তারা বলছেন, চরম দুর্দিনে ওমর ফারুক চৌধুরী এমপি অন্যদের মত ‘ঘরে বসে না থেকে’ সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে অভাবি মানুষের খোঁজ নিচ্ছেন নিয়মিত। ভ্যান চালক, চা বিক্রেতা, দৈনিক মজুরিভিত্তিক মানুষ যারা সরকারি নির্দেশনা মানতে ঘরে বসে আছেন। তাদের খোঁজ নিয়মিত রাখছেন তিনি।

আর নিজস্ব হটলাইনে কারো কল বা ম্যাসেজ পেলেই খোঁজ নিয়েই চাল, ডাল ও নগদ অর্থ নিয়ে রাতের আধারে পৌছে দিচ্ছেন তিনি। প্রতিদিন দুই উপজেলায় অন্তত ৪ থেকে ৬শ মানুষের জন্য খাদ্য সহায়তা বিলাচ্ছেন তিনি।
একদিকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখছেন অন্যদিকে নানাভাবে কর্মহীন হয়ে পড়া মানুষের ঘরে পৌছে দিচ্ছেন খাদ্য সহায়তা।

সাংসদ ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় এবং মানুষের চরম দুর্দিনে তিনি মানুষের পাশে দাড়ানোর চেষ্টা করছেন। শক্ত মনোবল নিয়ে তিনি খোঁজ নিচ্ছেন নির্বাচনী এলাকার অসহায় গরীব মানুষের। এই সময় কর্মহীন মানুষের পাশে দাড়ানো ছাড়া আর কোনো কাজ নেই তার।

করোনা বিস্তার রোধে জন সচেতনতার পাশাপাশি তিনি মানুষকে করোনা যুদ্ধে জয়ী হওয়ার জন্য সাহসও দিচ্ছেন। মানুষকে ঘরে থাকার আহবান জানাচ্ছেন।

তিনি বলেন, ত্রানের জন্য বাইরে আসতে হবে না। ঘরে থাকলেই সময়মত খাদ্য সহায়তা ও প্রয়োজনীয় অর্থও পৌছে দেওয়া হবে। তার কথামত খাদ্য সহায়তা পৌছেও যাচ্ছে কর্মহীনদের ঘরে।

ফারুক চৌধুরী বলেন, করোনা সংকটে শ্রমজীবি মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। আর এইসব কর্মহীন মানুষের পাশে এখনই দাঁড়ানোর সময়। তাই তিনি সাধ্যমত দাড়ানোর চেষ্টা করছেন। নির্বাচনী এলাকার দুটি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানগণের সহযোগিতায় স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ দর্লীয় নেতাকর্মীদের মাধ্যমেও এলাকার মানুষের খোঁজ নিয়ে তাদের কাছে খাদ্য সহায়তা দিচ্ছেন তিনি।

প্রতিদিনই বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে কর্মহীন মানুষের মাঝে চাল, ডাল, আলু, তেল, পেঁয়াজসহ বিভিন্ন খাদ্য দ্রব্য তুলে দিচ্ছে ওমর ফারুক চৌধুুরী।

এ নিয়ে তানোর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না বলেন, তানোর-গোদাগাড়ী উপজেলায় করোনা সংকটে কর্মহীনদের জন্য সর্বস্ব নিয়ে মাঠে নেমেছেন এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী। তার নির্দেশনায় নিয়মিত দুটি উপজেলার মানুষের খোঁজ খবর নিয়ে খাদ্য সহায়তা পৌছে দেওয়া হচ্ছে ঘরে ঘরে। সবাইকে নিজ নিজ ঘরে অবস্থানের বার্তা দিয়ে তাদের ঘরেই পৌছে দেওয়া হচ্ছে প্রয়োজনীয় খাদ্য সহায়তা। এতে কর্মহীনরা খুশি হচ্ছেন।

লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না আরও বলেন, ইতিমধ্যেই এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী নিজস্ব হটলাইন চালু করেছেন। তার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ মুঠোফোনে হটলাইন নম্বরের সঙ্গে আমার ও গোদাগাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যানের নম্বরও সংযুক্ত করেছেন।

নিজস্ব হটলাইন নম্বরে (০১৭১১-৮১৯২৪৭/০১৭১১-০৬৮৪৫০/০১৭১৬-৩৮৯৯৬০) যারা লজ্জায় নিজের কস্টের কথা সরাসরি বলতে পারবেন না তাদের এসএমএম করার অনুরোধ করা হয়েছে। ওই নম্বরে কেউ এসএমএস ও যোগাযোগ করলেই তার ঘরে পৌছে দেওয়া হচ্ছে ফারুক চৌধুর পক্ষ থেকে খাদ্য সহায়তা। এতে ব্যাপক সাড়া পাওয়া যাচ্ছে বলেও জানান চেয়ারম্যান ময়না।

স/এমএস