কেন্দ্রীয় নেতা বারীর নেতৃত্বে কৃষকের ধান কেটে দিলো ছাত্রলীগ

নিজস্ব প্রতিবেদক

নিউজরাজশাহী.কম

প্রকাশিত : ০২:২৫ পিএম, ২৯ এপ্রিল ২০২১ বৃহস্পতিবার | আপডেট: ০২:২৬ পিএম, ২৯ এপ্রিল ২০২১ বৃহস্পতিবার

করোনা সংকটকে কেন্দ্র করে লকডাউনে শ্রমিক সংকট ও অর্থ সংগ্রহ করতে না পারায় জমির পাকা ধান কাটাতে পারছিলেন না রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার শলুয়া ইউনিয়নের চামটা গ্রামের কৃষক আরিফ হোসেন। ফলে তাঁর ধান ক্ষেতেই নষ্ট হওয়ার উপক্রম হচ্ছিল। খবর পেয়ে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল্লাহ হীল বারী স্থানীয় কয়েকজন নেতা-কর্মীকে সঙ্গে নিয়ে আরিফ হোসেনের ক্ষেতের ধান কেটে দেন।

স্থানীয় লোকজন জানান, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল্লাহ হীল বারীর উদ্যোগে রাজশাহী জেলার পুঠিয়া উপজেলার বানেশ্বর ইউনিয়ন ও চারঘাট উপজেলার শলুয়া ইউনিয়নের ছাত্রলীগের কিছু নেতা-কর্মীরা আজ বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত কৃষক আরিফের ১ বিঘা জমির ধান কেটে দেন। ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের এ ধরনের উদ্যোগকে স্বাগত জানান এলাকার লোকজন। তারা প্রশংসা করেন ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের।

কৃষক আরিফ হোসেন জানান, লকডাউনের মধ্যে ধান কাটার উপযুক্ত সময় হওয়া সত্ত্বেও শ্রমিক সংকট ও অর্থ সংকটের কারণে পাকা ধান কাটতে পারছিলাম না। ফলে ক্ষেতের পাকা ধান নিয়ে কিছুটা ক্ষতির শঙ্কায় ছিলাম। আমার এমন অসহায়ত্বের কথা জানতে পেরে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল্লাহ হীল বারীকয়েকজন নেতাকর্মীকে সঙ্গে নিয়ে এসে টাকা-পয়সা ছাড়াই আমার ১ বিঘা ক্ষেতের ধান কেটে দেন। আমি তাদের এ সাহায্যের কথা কখনো ভুলব না। 

জানতে চাইলে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল্লাহ হীল বারী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় অসহায় ও দরিদ্র কৃষকদের ধান কেটে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। আমি আমার নিজ এলাকায় এসে জানতে পারি পার্শ্ববর্তী এলাকা শলুয়া ইউনিয়নের কৃষক আরিফ হোসেনের ১ বিঘা জমির পাকা ধান কাটতে না পেরে বিপাকে পরে আছেন। তাঁর অসহায়ত্বের কথা শুনে আমি রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগ, পুঠিয়া উপজেলার বানেশ্বর ইউনিয়ন ও চারঘাটের শলুয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে এ ধান কেটে দিয়েছি। এ সংকটকালে প্রয়োজনে খবর পেলে এমন আরও অসহায়দের ধান কেটে দেব আমরা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।