চাঁপাইয়ে জেএমবির স্বঘোষিত আমীর হত্যা মামলা: তিনজনের মৃত্যুদন্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক

নিউজরাজশাহী.কম

প্রকাশিত : ০৬:২০ পিএম, ২৫ নভেম্বর ২০১৯ সোমবার

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ২০১২ সালে জেএমবির স্বঘোষিত আমীর রুহুল আমীন ওরফে সালমান হত্যা মামলায় জেএমবির তিন সদস্যকে মৃত্যুদন্ড ও আরো চার সদস্যকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেয়া হয়েছে। একইসঙ্গে প্রত্যেককে এক লাখ টাকা অর্থদন্ড দেয়া হয়।  

সোমবার দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ শওকত আলী এ রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় দন্ডিদের মধ্যে ছয়জন উপস্থিত ছিলেন।

মৃত্যদন্ড প্রাপ্তরা হলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল উপজেলার চানপাড়ার সানোয়ার হোসেন, গোমস্তাপুর উপজেলার বালুগ্রাম-রাজারামপুরের জাহাঙ্গীর আলম, একইগ্রামের আব্দুস শুকুর। 

আর যাবজ্জীবনপ্রাপ্তরা হলেন- গোমস্তাপুর উপজেলার গোপালনগরের শামসুল হক, চকপুস্তম গ্রামের আব্দুল মোতাকাব্বির ওরফে বুলবুল, সাইফুল ইসলাম, নিমতলার শামীম। এদের মধ্যে সানোয়ার পলাতক রয়েছে। 

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর আঞ্জুমান আরা মামলার উদৃতি দিয়ে জানান, জেএমবির অভ্যন্তরীণ দ্বন্দের জেরে ২০১২ সালের ২৬ এপ্রিল নাচোল উপজেলার খলসি-বোরিয়া এলাকায় গলা কেটে হত্যা করা হয় ওই সময়ের স্বঘোষিত আমীর রুহুল আমীন ওরফে সালমানকে। ২৭ এপ্রিল সকাল সাড়ে ৬ টায় ওই এলাকার একটি আম বাগান থেকে সালমানের মাথা বিচ্ছিন্ন মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ এবং ওইদিন নাচোল থানার ততকালীন কর্মরত এস আই আনিসুর রহমান বাদী হয়েছে নাচোল থানায় অজ্ঞাতদের আসামী করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

পরবর্তীতে তদন্তের মাধ্যমে দন্ডিতদের সম্পৃক্ততা পাওয়ায় তাদের অভিযুক্ত করে ২০১৩ সালের ৩১ জানুয়ারি আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন নাচোল থানার পুলিশ পরিদর্শক সাঈদ ইকবাল।

প্রসঙ্গত, সালমানের বাড়ি ঢাকার ধানমন্ডিতে। তবে নাচোলের চানপাড়ায় তার শ্বশুরবাড়িতে অবস্থানের সময় তিনি হত্যার শিকার হন।