ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মাকে হত্যার অভিযোগ

ডেস্ক নিউজ

নিউজরাজশাহী.কম

প্রকাশিত : ১১:১৪ পিএম, ৩ এপ্রিল ২০২১ শনিবার

পঞ্চগড়ে মাদকাসক্ত ছেলের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে জয়তুন বেগম (৫০) নামের এক মায়ের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। শনিবার দুপুরে শহরের পশ্চিম মিঠাপুকুর মহল্লায় এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত ওই ছেলের নাম শহিদুল ইসলাম (৩৫)। ঘটনার পর থেকে তিনি পলাতক রয়েছেন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, পঞ্চগড় শহরের পশ্চিম মিঠাপুকুর এলাকার আব্দুল মজিদের ছেলে শহিদুল এলাকায় মাদকাসক্ত বলেই পরিচিত। মাদকের টাকা না পেয়ে প্রায়ই তিনি বাবা-মাসহ পরিবারের সদস্যদের মারধর করতেন। তার অত্যাচারে অনেক আগেই স্ত্রী বাড়ি ছেড়ে বাবার বাড়ি চলে যান। শহিদুলের আচরণে অতিষ্ঠ হয়ে কয়েক মাস আগে পরিবারের লোকজন তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। জেল থেকে বের হয় তিনি আবারও বাড়িতে ফিরে পরিবারের সদস্যদের ওপর অত্যাচার শুরু করেন। সর্বশেষ শনিবার দুপুরে চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা শহিদুলদের বাড়িতে গিয়ে টিউবওয়েলের পাশে রক্তাক্ত অবস্থায় জয়তুন বেগমকে পড়ে থাকতে দেখেন। এ সময় লোকজন দেখে পালিয়ে যান শহিদুল। পরে প্রতিবেশীরা জয়তুন বেগমকে উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক প্রতিবেশী জানায়, শহিদুলের মা বাড়ির টিউবওয়েলে কাজ করছিল। নেশার টাকা না পেয়ে সেখানেই তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে শহিদুল। তাদের সামনেই শহিদুল তার মাকে রক্তাক্ত অবস্থায় ফেলে পালিয়ে যান। এর আগেও তিনি তার বাবা মা-সহ পরিবারের সদস্যদের মারধর করেছেন।

পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. রাকিব হোসেন জানান, হাসপাতালে নেওয়ার আগেই ওই নারী মারা যান। তার গলায় ধারালো অস্ত্রের আঘাত ছিল। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার আগে নিশ্চিত করে মৃত্যুর কারণ বলা যাবে না।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এস. এম. শফিকুল ইসলাম বলেন, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, মাদকাসক্ত ছেলের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে তার মৃত্যু হয়েছে। অভিযুক্ত ছেলেকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। এছাড়া পরিবারের পক্ষ থেকে হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।