পুঠিয়া পৌর নির্বাচন

মনোনয়ন প্রত্যাশী ১১জনের নাম জেলা আ’লীগের কাছে

নিজস্ব প্রতিবেদক, পুঠিয়া

নিউজরাজশাহী.কম

প্রকাশিত : ১০:৫২ পিএম, ২৪ নভেম্বর ২০২০ মঙ্গলবার

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

রাজশাহীর পুঠিয়ায় আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে স্থানীয় আওয়ামী লীগের ১১ জন প্রার্থী দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী।

এ উপলক্ষে মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) সন্ধ্যায় পুঠিয়া পিএন মডেল সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ে এক বিশেষ বর্ধিত সভার আয়োজন করা হয়।

সভায় আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন চান মোট ১১ জন। আলোচনায় সর্বসম্মতিক্রমে ওই ১১ জনের নামের একটি তালিকা জেলা আওয়ামী লীগ বরাবর পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হচ্ছেন, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য অধ্যক্ষ গোলাম ফারুক, পুঠিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু বক্কর সিদ্দিক, সাধারণ সম্পাদক শাহরিয়ার রহিম কনক, বর্তমান পৌর মেয়র ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রবিউল ইসলাম রবি, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সারোয়ার শফিক হীরক, রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান (সৌরভ হাবিব), এবিএম শাখাওয়াত হোসেন বাসার, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান, পৌর আওয়ামী লীগ নেতা খালিদ হোসেন লালন ও সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম টিপু।

সভায় পুঠিয়া পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু বক্কর সিদ্দিকের সভাপতিত্বে ও সম্পাদক শাহরিয়ার রহিম কনকের সঞ্চালনায় রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য এড. জমসেদ আলী, অধ্যক্ষ গোলাম ফারুক, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নজরুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুল মালেক, জেলা যুবলীগের ক্রীড়া সম্পাদক নাসির উদ্দিন উইলিয়াম, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র রবিউল ইসলাম রবি, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান, পৌর আওয়ামী লীগের ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারন সম্পাদকসহ উপজেলা আওয়ামী লীগের সহযোগী ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ২২ নভেম্বর দ্বিতীয় বারের মত পুঠিয়া পৌরসভার নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা করেন নির্বাচন কমিশন। সে মোতাবেক মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ ১ ডিসেম্বর। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই হবে আগামী ৩ ডিসেম্বর। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ১০ ডিসেম্বর। আর ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৮ ডিসেম্বর। তবে এবার ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের মাধ্যমে (ইভিএম) ভোট গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশন।