লাল-সবুজে আলোকিত হলো অস্ট্রেলিয়ার ২ ব্রিজ

ডেস্ক নিউজ

নিউজরাজশাহী.কম

প্রকাশিত : ০৫:১১ পিএম, ২৩ মার্চ ২০২১ মঙ্গলবার

লাল-সবুজে আলোকিত হলো অস্ট্রেলিয়ার দু`টি ঐতিহাসিক স্থাপত্য স্টোরি ব্রিজ এবং ভিক্টোরিয়া ব্রিজ। কুইন্সল্যান্ডে শহর ব্রিসবেনের এ দু`টি উল্লেখযোগ্য স্থাপত্য শহরের প্রানকেন্দ্রে অবস্থিত। অস্ট্রেলিয়ার কোনো বিশেষ স্থাপত্যই বাংলাদেশের পতাকার রংয়ে আলোকিত করার ঘটনা এটিই প্রথম।

 ড. জিশু দাস গুপ্ত ও বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ইন ব্রিসবেন ইনকের (ব্যাব) উদ্যোগ এবং অস্ট্রেলিয়ান লোকাল গভর্নমেন্টের সহযোগিতায় এ আয়োজন করা হয়। দিনের আলো যখন হারিয়ে যাচ্ছিল ঠিক তখনই মিটমিট করে জ্বলে ওঠে ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে পাওয়া লাল-সবুজ পতাকা। সন্ধ্যা ৭টায় আলো পূর্ণভাবে জ্বলে ওঠে। তখন ব্রিসবেন নদীর পানিতে উজ্জ্বলভাবে প্রতিফলিত হয় বাংলাদেশের পতাকা। 

এদিন ব্রিসবেনে বসবাসকারী বাংলাদেশিরা মিলিত হন স্টোরি ব্রিজের নিচে। সারাদিন ধরে চলতে থাকা বৃষ্টি উপেক্ষা করে সবাই একসঙ্গে গলা মিলিয়ে গেয়ে ওঠেন `আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালবাসি`। এ যেন এক অন্য অনুভূতি। বিদেশের মাটিতে নিজের দেশের পতাকা দেখতে পারার আনন্দ উচপে পড়ে সবার চোখেমুখে। 

ব্যাবের প্রেসিডেন্ট মুনির রহমান বলেন, `একজন গর্বিত বাংলাদেশি হিসেবে এই অনুভূতি ভাষায় প্রকাশ করা যাবে না। আমাদের অনেক দিনের প্রচেষ্টার ফলে এ আয়োজন করা সম্ভব হয়েছে। এটি আমাদের সূচনা মাত্র। আমরা আগামী দিনে ব্রিসবেন তথা গোটা অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশকে তুলে ধরব আরও উঁচু থেকে উঁচুতে, যা হবে আমাদের পরবর্তী প্রজন্মের জন্য দেশের প্রতি দায়িত্ব এবং ভালবাসার দৃষ্টান্ত।` ২০১৮ সাল থেকে এ আয়োজনের চেষ্টা করা হলেও এবারই প্রথম সম্ভবপর হলো।

 

এদিকে ভিক্টোরিয়া ব্রিজেও দেখা মেলে আলোকিত বাংলাদেশের পতাকার। সেখানেও গিয়ে দেখা যায় বাঙালিদের মিলনমেলা। ব্রিসবেনে বসবাসকারী বাংলাদেশিরা এ গর্বের মুহূর্তটি মিস করতে চাননি। তাই কয়েক দিন ধরে চলতে থাকা বৃষ্টি উপেক্ষা করে সবাই একত্রিত হয়েছিলেন এ ব্রিজের কাছে।

এই আয়োজনের স্বপ্নদ্রষ্টা ড. জিশু দাস গুপ্তের অনুভুতি জানতে চাইলে আবেগাপ্লুত হয়ে তিনি বলেন, `২০১৮ সাল থেকে আমার ও কমিউনিটির সব সদস্যের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ চেষ্টার ফলেই আমাদের এ অর্জন। আমরা চাই এ অর্জন ছড়িয়ে পড়ুক পৃথিবীর আনাচে-কানাচে। জ্বলে উঠুক বাংলাদেশের নাম।`

ড. জিশু দাস গুপ্তের প্রচেষ্টায় অস্ট্রেলিয়ার সব রাষ্ট্রীয় ও গুরুত্বপূর্ণ ওয়েবসাইটে বাংলাভাষাকে যুক্ত করা হয়। এছাড়া গত ২২ শে মার্চ বাংলাদেশ কমিউনিটির পক্ষ থেকে ব্রিসবেন মেয়রের কাছে অফিসিয়ালি লাল-সবুজের পতাকা হস্তান্তর করা হয়। আগামী ২৬ মার্চ রাষ্ট্রীয়ভাবে ব্রিসবেন শহরের প্রানকেন্দ্র এবং ব্যস্ততম এলাকা সিটি হলে বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করা হবে বলে জানা গেছে।