শিল্পায়নের পথে রাজশাহী, ১০ হাজার মানুষের হবে কর্ম

নিজস্ব প্রতিবেদক

নিউজরাজশাহী.কম

প্রকাশিত : ০৪:৩০ পিএম, ১৮ আগস্ট ২০২১ বুধবার

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

রাজশাহী বিসিক শিল্পনগরী-২ প্রকল্পের ৮০ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। বাকি ২০ শতাংশ কাজ চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে শেষ হবে। বিসিক শিল্পনগরী-২ এর কাজ শেষ হলে রাজশাহী শিল্পায়নের দিকে অনেকটাই এগিয়ে যাবে। ফলে বিসিক শিল্পনগরী-২ তে স্থাপিত কলকারখানা ও ইন্ডাস্ট্রিজে প্রায় ১০ হাজার মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে।

রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক) সূত্রে জানা গেছে- রাজশাহীকে শিল্পায়ন করা লক্ষে কাজ করছেন সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। শিল্পায়ন হলে প্রচুর বেকারের কর্মসংস্থানের সুযোগ হবে। তার অংশ হিসেবে রাজশাহীতে পাইপ লাইনের মাধ্যমে গ্যাস নিয়ে আসা হয়েছে। যেটি শিল্পায়নের মূল লক্ষ ছিলো। তবে গ্যাস নগরীতে বাসা-বাড়িতে রান্না ছাড়া তেমন কাজে আসছে না।

 

যদি সিটি মেয়র লিটন গত সময়ে ক্ষমতায় থেকে গ্যাস এনেছিলেন মূলত শিল্পায়নের জন্যেই। কিন্তু নানা প্রতিকূলতায় সেটি আর হয়ে উঠেনি। তবে বিসিক শিল্পনগরী-২ তে সেই গ্যাস কাজে লাগানো যাবে। ফলে কারখানা ছাড়াও অন্য কাজে গ্যাস ব্যবহার করা যাবে বলে সংশ্লিষ্টরা বলছেন।

বিসিক সংশ্লিষ্টরা বলছে, কারাখানাগুলো বিদ্যুৎ দিয়ে চললে খরচ অনেক বেশি হবে। ফলে পণ্য উৎপাদন ও খরচ মিলে তেমন লাভ হবে না। যদি গ্যাস থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন করে কারখানার কাজে লাগানো হয় তবে খরচ কমবে ৭ ভাগের এক ভাগ। এছাড়া গ্যাস অন্য কাজেও লাগানো যাবে।

রাসিক সূত্রে জানা গেছে, রাজশাহীতে শিল্পাঞ্চল প্রতিষ্ঠা ও বিপুল সংখ্যক মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে বিসিক শিল্পনগরী-২ স্থাপন রাসিক মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি ছিলো। রাজশাহীতে শিল্পায়ন প্রতিষ্ঠা ও বিপুলসংখ্যক মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে এই বিসিক শিল্পনগরী-২ স্থাপন করা হচ্ছে। এছাড়া বিসিক শিল্পনগরী-২ প্রকল্পটি বাস্তবায়নের ফলে রাজশাহী অঞ্চলে শিল্পায়ন বিস্তার লাভ করবে। পাশাপাশি বিপুলসংখ্যক মানুষের কর্মসংস্থান হবে।

 

প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, রাজশাহী বিসিক শিল্পনগরী-২ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ১৭২ কোটি টাকা। এরমধ্যে ভূমি ও ভূমি উন্নয়ন ব্যয় ১০৫ কোটি টাকা। বাকি ৬৭ কোটি টাকায় শিল্প স্থাপনের সকল অবকাঠামো নির্মাণ, রাস্তা, ড্রেন, কালর্ভাট নির্মাণ, পানি, গ্যাস ও বিদ্যুৎ লাইন সংযোগ, সীমানা প্রাচীর, পাম্প হাউজিং, অফিস, পানি সংরক্ষের জন্য পুকুর ইত্যাদি স্থাপন করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে ভূমি উন্নয়ন কাজ, বাউন্ডারি ওয়াল নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। ড্রেন সহ অন্যান্য স্থাপনা নির্মাণ কাজ চলছে। প্রকল্পের প্রায় ৮০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশনের (বিসিক) তত্ত্বাবধানে বাস্তবায়নাধীন এই প্রকল্পটি দেশের শিল্পায়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে এবং একটি বিশেষায়িত শিল্প নগরী স্থাপনের মাধ্যমে রাজশাহীর জনগণের দীর্ঘদিনের আকাঙ্খা পূরণ হবে।

বিসিক শিল্পনগরী-২ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী হায়দার আলী বলেন, রাজশাহী বিসিক শিল্পনগরী-২ প্রকল্পের ৮০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। বাকি ২০ শতাংশ কাজ চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে শেষ হবে। বিসিক শিল্পনগরী-২ সম্পন্ন হলে শিল্পায়নের দিকে অনেকটাই এগিয়ে যাবে রাজশাহী। সেখানে হাজার হাজার মানুষের কর্মসংস্থান হবে।

 

তিনি আরো বলেন, বিসিক শিল্পনগরী-২ তে বিদ্যুৎ সরবারহের কাজ করছে নেসকো। এছাড়া গ্যাসের সরবারহের ব্যবস্থা থাকবে। গ্যাস থাকলে কলকারখানায় উৎপাদন খরচ অনেক কমে যাবে। ফলে বিসিক শিল্পনগরী-২ এর ব্যবসায়ীরা উৎপাদিত পণ্য বিক্রি করে ভালো মুনফা পাবে।

প্রসঙ্গত, ২০২০ সালের ৪ জুলাই রাজশাহী বিসিক শিল্পনগরী-২ প্রকল্পের ৫০ একর ভূমির উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করেন মেয়র লিটন। প্রকল্পটির কাজ শেষে হলে সেখানে প্রায় ১০ হাজার মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে।